রাগিব রাবেয়ায় চলছে ৩ দিনের শোক

নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের সময় ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের বিএস২১১ ফ্লাইটটির বিধ্বস্ত প্লেনে সিলেটের রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের ১৩ জন শিক্ষার্থী ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ ভিডিও পেতে এখনি সাবস্ক্রাইব বাটনে ক্লিক করুন

এদের মধ্যে প্রিন্সি দাম ও সামিরা বায়জানকার নামে দুই শিক্ষার্থী বেঁচে আছেন! বাকিরা মারা গেছেন-এমন ধারণা কলেজ কর্তৃপক্ষের। এ কারণে মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) সকাল থেকে ৩দিনের শোক পালন করছে মেডিকেল কলেজটি ছাত্র-শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। একই সঙ্গে এদিন সকাল থেকে প্রতিষ্ঠানটির পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে।

এর আগে, সোমবার (১২ মার্চ) সন্ধ্যায় রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মো. আবেদ হোসাইন প্রেস ব্রিফিংয়ে মাধ্যমে ৩ দিনের শোক ঘোষণা দেন।

<<<লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন>>>

শিক্ষার্থীদের মারা যাওয়ার খবর নিশ্চিত না হয়ে শোক ঘোষণার বিষয়ে তিনি বলেন, ইউএস বাংলার প্লেন দুর্ঘটনায় এমনিতেই তারা শোক জানাতে পারেন।

ওই প্লেনে রাগিব রাবেয়া মেডিকেলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছিলেন- ১৯তম ব্যাচের সঞ্জয় পৌডেল, সঞ্জয়া মহারজন, নেগা মহারজন, অঞ্জলি শ্রেষ্ঠ, পূর্ণিমা লোহানি, শ্রেতা থাপা, মিলি মহারজন, শর্মা শ্রেষ্ঠ, আলজিরা বারাল, চুরু বারাল, শামিরা বেনজারখার, আশ্রা শখিয়া ও প্রিঞ্চি ধনি।

এদিকে, সোমবার (১২ মার্চ) রাতে হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আরমান আহমদ শিপলু বলেন, নেপালি শিক্ষার্থীর মধ্যে দুইজন আহত হয়েছেন জানতে পেরেছি। অন্যদের ভাগ্যে কী ঘটছে তা এখনও বলা যাচ্ছে না। প্রাথমিক খবরে তাদের ১১জন শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।