বিনিয়োগ আকর্ষণে চট্টগ্রামের ইমেজ বাড়ানোর তাগিদ

বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণে বাণিজ্য নগরী হিসেবে পরিচিত চট্টগ্রামের ইমেজ বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূত মেরি-এনিক বোরদিন।

তিনি বলেন, তুলনামূলকভাবে অনেক পরিচ্ছন্ন ও বন্ধুত্বপূর্ণ শহর চট্টগ্রামের সাথে ফ্রান্সের বাণিজ্যিক সম্পর্ক অত্যন্ত প্রাচীন। কিন্তু সবকিছু রাজধানী কেন্দ্রিক হওয়ার কারণে চট্টগ্রামে অনেক সম্ভাবনা থাকার পরও যথাযথ গুরুত্ব পাচ্ছে না।

বুধবার (৭ মার্চ) বিকেলে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে চট্টগ্রাম চেম্বার নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ তাগিদ দেন ফান্সের রাষ্ট্রদূত। মিলিত হন। এতে সভাপতিত্ব করেন চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম।

বাংলাদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা অন্যতম প্রধান বাধা মন্তব্য করে রাষ্ট্রদূত জানান, বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ, জৈব খাদ্য উৎপাদন, বঙ্গোপসাগর ও অভ্যন্তরীণ নদীসমূহের অর্থনৈতিক সম্ভাবনা কাজে লাগাতে যৌথ বিনিয়োগের বিষয়ে উদ্যোগ নেবেন।

এছাড়া আরএমজি সেক্টর, সমাজের পশ্চাৎপদ অংশ ও রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে ফ্রান্স সরকারের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও জানান রাষ্ট্রদূত।

<<<লাইক দিয়ে সাথেই থাকুন>>>

২০১৬-১৭ অর্থবছরে ফ্রান্সে ১ দশমিক ৫৫ বিলিয়ন ডলার রফতানি ও পণ্য সম্ভার বহুমূখীকরণের উপর গুরুত্বারোপ করে চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বাংলাদেশে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, টোটাল গ্যাস, এডেক্স, ডানোন ইত্যাদি কোম্পানীর মতো আরও ফরাসি বিনিয়োগ প্রত্যাশা করেন।

জিটুজি ভিত্তিতে যৌথ উদ্যোগে ইন্সটিটিউট স্থাপন করে দক্ষ বিশেষজ্ঞ তৈরিরও প্রস্তাব দেন তিনি।

২০১২ সাল থেকে ফ্রেন্স ডেভেলাপমেন্ট এজেন্সীর টেক্সটাইল সেক্টরে অবকাঠামো উন্নয়ন, নিরাপত্তা, পরিবেশ ও সামাজিক অবস্থার উন্নয়নে গৃহীত কার্যক্রমের জন্য কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সুবিধাবঞ্চিতদের জীবনমান উন্নয়নে সহযোগিতার অনুরোধ জানান।

এক্সক্লুসিভ ভিডিও পেতে এখনি সাবস্ক্রাইব বাটনে ক্লিক করুন

সৈয়দ মোহাম্মদ তানভীর আহমেদ বিজিএমইএ পরিচালিত চিটাগাং ইন্সটিটিউট অব ফ্যাশন টেকনোলজির মাধ্যমে ফ্যাশন ডিজাইনিং এ দক্ষ জনশক্তি তৈরিতে কারিগরি সহযোগিতার অনুরোধ জানান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে চেম্বার সহ-সভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালক এ কে এম আক্তার হোসেন, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী (আলমগীর), মো. অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), অঞ্জন শেখর দাশ, ফ্রান্সের অনারারী কনসাল জেনারেল রাফি নিজাম, আলিলিয়ঁস ফ্রঁসেজ চট্টগ্রামের পরিচালক ড. সেলভাম তোরেজ, উপ-পরিচালক ড. গুরুপদ চক্রবর্তী, বিজিএমইএ ও প্যাসিফিক জিন্স’র পরিচালক সৈয়দ মোহাম্মদ তানভীর আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।